সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৬:১৭ অপরাহ্ন

অগ্রসর চিপ উৎপাদন তিন গুণ বাড়াবে স্যামসাং

প্রতিনিধির / ৭৯ বার
আপডেট : বুধবার, ৫ অক্টোবর, ২০২২
অগ্রসর চিপ উৎপাদন তিন গুণ বাড়াবে স্যামসাং
অগ্রসর চিপ উৎপাদন তিন গুণ বাড়াবে স্যামসাং

২০২৭ সালের মধ্যে অগ্রসর চিপ উৎপাদন তিন গুণ বাড়াতে চায় স্যামসাং। বৈশ্বিক অর্থনীতিতে শ্লথগতি সত্ত্বেও ব্যাপক চাহিদাকে সামনে রেখে উৎপাদন বৃদ্ধিতে জোর দিচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক প্রযুক্তি জায়ান্টটি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২৫ সালের মধ্যে ২ ন্যানোমিটারের অত্যাধুনিক চিপ পুরোদমে উৎপাদন শুরু করবে স্যামসাং। ২০২৭ এ উৎপাদন শুরু হবে ১ দশমিক ৪ ন্যানোমিটারের চিপ। গত জুনে ৩ ন্যানোমিটারের চিপ গণ-উৎপাদন শুরু করেছে তারা। এ অগ্রসর চিপের গ্রাহক তালিকায় রয়েছে কোয়ালকম, টেসলা, অ্যাডভান্সড মাইক্রো ডিভাইসেস বা এএমডির মতো প্রতিষ্ঠান।

সাম্প্রতিক বছরগুলোয় গ্রাহকদের প্রত্যাশিত সময়ে সেমিকন্ডাক্টর পণ্য সরবরাহে হিমশিম খাচ্ছে বিশ্বের শীর্ষ এ মেমরি চিপ নির্মাতা কোম্পানিটি। বিশ্লেষকরা বলছেন, টিএসএমসির সঙ্গে টেক্কা দিতে গিয়ে দ্রুত অগ্রসর প্রযুক্তি গ্রহণ করেছে তারা। কিন্তু চুক্তিভিত্তিক চিপ নির্মাণে দীর্ঘমেয়াদে গ্রাহক সেবা দেয়ার অভিজ্ঞতা কম থাকায় টিএসএমসির চেয়ে পিছিয়ে রয়েছে তারা।

স্যামসাংয়ের ইলেকট্রনিকস ডিভাইস সলিউশনস বিভাগের প্রধান কিয়াং-কাই-হিয়ুন সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, টিএসএমসি ফাউন্ড্রি খাতে যে উন্নতি করেছে তার তুলনায় অনেক পিছিয়ে স্যামসাং। এছাড়া ৫ ও ৪ ন্যানোমিটারের চিপের পারফরম্যান্স ততটা আশানুরূপ নয়। তবে ২০২৪ সালে নির্মিত হতে যাওয়া ৩ ন্যানোমিটারের চিপের দ্বিতীয় ভার্সন নিয়ে গ্রাহকরা এরই মধ্যে আগ্রহ দেখাচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে মূল্যস্ফীতি শঙ্কা জাগালেও ৫ ন্যানোমিটারের এবং অগ্রসর চিপের চাহিদা বাড়ছে বলে জানান কিয়াং-কাই-হিয়ুন। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই), ফাইভজি ও ৬জি সংযোগ ও গাড়ি শিল্পে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে অত্যাধুনিক চিপের। তিনি আরো জানান, পূর্বপরিকল্পিত সব বিনিয়োগ সম্পন্ন করা গেলেও চাহিদা পূরণ কঠিন ঠেকবে ফাউন্ড্রি শিল্পের।

চিপ নির্মাণের মেশিন সরবরাহ করে ডাচ কোম্পানি এএসএমএলের মতো কিছু কোম্পানি। কিন্তু তাদেরও কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে।

স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের ফাউন্ড্রি ব্যবসার ভাইস প্রেসিডেন্ট মোনসু ক্যাং জানান, সরবরাহ চেইনে শৃঙ্খলার জন্য মার্কিন গ্রাহকরা যুক্তরাষ্ট্রেই চিপ উৎপাদনে যেতে চায়। টেক্সাসের টেইলরে আমাদের যে কারখানা রয়েছে তা বেশ বড়। এটা ইচ্ছে করলে আমরা সম্প্রসারণ করতে পারি।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে কার্যক্রম সম্প্রসারণের অংশ হিসেবে টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের টেইলরে নতুন একটি চিপ কারখানা নির্মাণ করছে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক প্রযুক্তি জায়ান্টটি। ২০২৪ সালে ওই কারখানায় পুরোদমে উৎপাদন শুরু হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত বছর গুগলের জন্য ৫ ন্যানোমিটার প্রসেস নোড ব্যবহারের মাধ্যমে প্রথম টেনসর চিপ তৈরি করেছে স্যামসাং। পিক্সেল ৬ সিরিজের স্মার্টফোনে চিপটি ব্যবহার করা হয়েছে। সম্প্রতি প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, গুগলের জন্য পরবর্তী প্রজন্মের টেনসর চিপের পাশাপাশি এক্সিনোস ১৩৮০ প্রসেসর তৈরিতেও কাজ করছে তারা।

গ্যালাক্সিক্লাবের প্রতিবেদনে বলা হয়, টেনসর২ চিপটির উন্নয়ন কার্যক্রম ক্লাউডরিপার নামের ডেভেলপার বোর্ডে সম্পন্ন করা হবে। অন্যদিকে এক্সিনোস ১৩৮০ প্রসেসরটি ১২৮০-এর উত্তরসূরি হিসেবে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। চলতি বছরের এপ্রিলে এক্সিনোস ১২৮০ বাজারজাত করেছিল প্রতিষ্ঠানটি।

তাইওয়ান সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানিকে (টিএসএমসি) পেছনে ফেলে গত জুলাইয়ে প্রথম প্রতিষ্ঠান হিসেবে ৩ ন্যানোমিটার প্রযুক্তির চিপ উৎপাদন শুরু করে স্যামসাং।

চিপ উৎপাদনে এবার গেট অল অ্যারাউন্ড (জিএএ) ট্রানজিস্টর অবকাঠামো ব্যবহার করছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি জায়ান্টটি। এ অবকাঠানো অধিক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী বলে জানা গেছে। নতুন এ মাইলফলকের মাধ্যমে স্যামসাং চিপের আকৃতি কমানোর পাশাপাশি এর কার্যক্ষমতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে টিএসএমসি থেকে এক ধাপ এগিয়ে গেল।

গত জুলাইয়ে এক বিবৃতিতে স্যামসাং ইলেকট্রনিকস জানায়, আধুনিক প্রযুক্তির নতুন চিপটি ৫ ন্যানোমিটার প্রযুক্তিতে উৎপাদিত চিপগুলোর তুলনায় কম প্রশস্ত। পাশাপাশি এটি ২৩ শতাংশ বেশি কার্যকর এবং ৪৫ শতাংশ কম বিদ্যুৎ ব্যয় করে। আধুনিক প্রযুক্তির ও উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন চিপ তৈরির জন্য স্যামসাং দীর্ঘদিন থেকে টিএসএমসির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় রয়েছে। আকারে ছোট ও আধুনিক চিপ উৎপাদন অনেকটা কঠিন। কেননা সেখানে অল্প জায়গায় অধিক ট্রানজিস্টর বসাতে হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: