শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন

আমদানির চেয়ে ১ শতাংশ কমে পেট্রোল-অকটেন কিনছে বিপিসি

প্রতিনিধির / ১৩৯ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২২
আমদানির চেয়ে ১ শতাংশ কমে পেট্রোল-অকটেন কিনছে বিপিসি
আমদানির চেয়ে ১ শতাংশ কমে পেট্রোল-অকটেন কিনছে বিপিসি

দাম নির্ধারণ শেষে বেসরকারি রিফাইনারি থেকে পেট্রোল-অকটেন কিনতে যাচ্ছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। আমদানির চেয়ে ১ শতাংশ কম দামে এসব পণ্য কিনবে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানটি।

উদ্যোক্তারা বলছেন, এতে করে একদিকে সাশ্রয় হবে তিন হাজার কোটি টাকা সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। অন্যদিকে আন্তর্জাতিক মানের পেট্রোলিয়াম পণ্য পাবে দেশের মানুষ।

এক সময় দেশের গ্যাসক্ষেত্রের কনডেনসেট বা তলানি থেকে তৈরি অকটেন-পেট্রোলেই চাহিদা মেটানো যেতো। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে যানবাহন ও বিভিন্ন খাতে জ্বালানির চাহিদা বেড়েছে। তার বিপরীতে গ্যাসক্ষেত্রের কনডেনসেট কমে যাওয়ায় আমদানি নির্ভরতাও বাড়ে।

বিপিসি এখন বছরে ৫ লাখ টন পরিশোধিত পেট্রোল-অকটেন আনে। এতে সংস্থাটিকে বড় অংকের বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করতে হয়। তাই ডলার সাশ্রয়ে আমদানি করা কনডেনসেট থেকে পুরোটাই দেশে উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এজন্য কনডেনসেট আমদানির অনুমোদন পায় চার বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ।

তবে গত চার মাসের বেশি সময় এসব প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত অকটেন-পেট্রলের দাম নির্ধারণ নিয়ে অচলাবস্থা ছিল। অবশেষে সোমবার দাম ঠিক করে গেজেট প্রকাশ করে সরকার। যেখানে বলা হয়, বিপিসি নির্দিষ্ট মানের ডিজেল-অকটেন আমদানিতে যে ব্যয় করে, তার চেয়ে ১ শতাংশ কমে স্থানীয় বেসরকারি কোম্পানি থেকে কিনবে। প্রতি লিটার পেট্রোলের দাম হবে অকটেনের চেয়ে ৪ টাকা কম।

বিপিসির পরিচালক খালেদ আহমেদ জানান, যেহেতু ১ শতাংশ কম দামে কিনবে, এতে অর্থ সাশ্রয় হবে। সেইসাথে পেট্রোল-অকটেনে বিপিসির বাইরে স্থানীয় সক্ষমতা বাড়বে।

উদ্যোক্তাদের দাবি, আন্তর্জাতিক মানের জ্বালানি পরিশোধনের সব সুবিধা আছে বেসরকারি রিফাইনারিগুলোতে। স্থানীয় এ শিল্পকে উৎসাহিত করলে বাড়বে সরকারের রাজস্ব আয়।

পারটেক্স পেট্রোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুবেল আজিজ বলেন, কনডেনসেট ও অকটেন এর দামের পার্থক্য অনেক। তাই কাচামাল আমদানি করে অকটেন করা গেলে বছরে ৩ হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা সম্ভব।

সুপার পেট্রোকেমিক্যাল লি. এর পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, সরকারি নীতি সহায়তা অব্যাহত থাকলে আমাদের বেসরকারিখাতের ৪ টি প্রতিষ্ঠানেই বছরে ৯ লাখ টন পেট্রোলিয়াম পণ্য উৎপাদন করা সম্ভব। দেশের বার্ষিক অকটেন পেট্রোলের চাহিদা আমরাই পূরণ করতে পারব।

ব্যবসায়ীদের দাবি, বিশ্ব অর্থনীতির এই অস্থির সময়ে জ্বালানি খাতে আমদানি নির্ভরতা কমানো গেলে, সামগ্রিকভাবে দেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। সুগম হবে স্থানীয় শিল্পের সক্ষমতা বৃদ্ধির পথ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: