শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৩:২০ অপরাহ্ন

চ্যাম্পিয়নের মতোই শুরু টাইগ্রেসদের

প্রতিনিধির / ১২১ বার
আপডেট : রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০২২
চ্যাম্পিয়নের মতোই শুরু টাইগ্রেসদের
চ্যাম্পিয়নের মতোই শুরু টাইগ্রেসদের

এশিয়া কাপ ধরে রাখার মিশনে বাংলাদেশ নারী দলের শুরুটা হলো দুর্দান্ত। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের পর ওপেনার শামিমা সুলতানার বিস্ফোরক ইনিংসে উদ্বোধনী ম্যাচে থাইল্যান্ডকে ৯ উইকেটে হারালো টাইগ্রেসরা। গতকাল সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ২ নম্বর গ্রাউন্ডে থাইল্যান্ডকে মাত্র ৮২ রানে গুঁড়িয়ে দেন সোহেলি-রুমানারা। সহজ লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ৫০ বল হাতে রেখেই জয় বন্দরে পৌঁছায় বাংলাদেশ।
রান তাড়ায় ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনিং জুটিতে ৬৯ রান তোলেন শামিমা সুলতানা ও ফারজানা হক। ৮.১ ওভারে শামিমা আউট হলে ভাঙে এই জুটি। ৩০ বলে ১০ বাউন্ডারিতে ৪৯ রান করে জয়ের ভিত গড়ে সাজঘরে ফেরেন এই ওপেনার। বাকি কাজ সম্পন্ন করেন ফারজানা ও নিগার সুলতানা জ্যোতি। ২৯ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ২৬ রানে অপরাজিত থাকেন ফারজানা। ১১ বলে ১ ছক্কায় অধিনায়ক জ্যোতির সংগ্রহ ১০* রান।
এর আগে বোলিংয়ে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন সানজিদা আক্তার মেঘলা। দলীয় ১৩ রানে নান্নাপাট কনচারোয়েনবাইকে আউট করেন তিনি।

১২ বলে ৮ রান করেন এই ওপেনার। দলীয় ১৬ রানে থাই অধিনায়ক নারুয়েমল চাইওয়াই সোহেলি আক্তারের শিকারে পরিণত হন। ৫ বলে ২ রান করেন তিনি। থাইদের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস আসে ফান্নিতা মায়ার ব্যাট থেকে। ২২ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ২৬ রান করে সোহেলি আক্তারের বলে আউট হন তিনি। এছাড়া ওপেনার নাথাকান চানথাম ৩৮ বলে ২০, সরনারিন তিপোচ ১৫ বলে ১০ রান এবং রসেনান কানোহ ১২ বলে ১১ রান করেন। বাকিদের কেউ ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্কের কোঠা।
বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল রুমানা আহমেদ। ৩ ওভারে মাত্র ৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন তিনি। দুটি করে উইকেট পান নাহিদা আক্তার, সানজিদা আক্তার মেঘলা ও সোহেলি আক্তার। একটি উইকেট শিকার সালমা খাতুনের।
ব্যাটিংয়ে ৩০ বলে ৪৯ রান করে এবং ফিল্ডিংয়ে দুই ক্যাচ নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন শামিমা সুলতানা। ম্যাচের পর এই ব্যাটার বলেন, ‘আমি আমার স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে চেয়েছি এবং শেষ পর্যন্ত ক্রিজে থাকতে চেয়েছিলাম। আমরা দারুণ বল করেছি। এটা দলীয় পারফরম্যান্স। প্রথমদিকে উইকেট কিছুটা স্লো ছিল। পরে ভালো পেয়েছি।’
টাইগ্রেস অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি দলের পারফরম্যান্সে খুশি। তিনি বলেন, ‘আমরা যেভাবে বল করেছি, সেটা দুর্দান্ত। পরিকল্পনামাফিক খেলেছি আমরা। বোলিংয়ে তাদের আটকে দিয়ে ব্যাটিংয়ে ভালো করার আত্মবিশ্বাস অর্জন করি।’
১১ ওভার শেষে জয় পেতে ১ রান প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। ১১.৪ ওভারে ছক্কা হাঁকিয়ে জয় তুলে নেন জ্যোতি। এনিয়ে তিনি বলেন, ‘এক রান প্রয়োজন ছিল। আমি চাচ্ছিলাম ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ শেষ করতে (হাসি)।’
সংক্ষিপ্ত স্কোর
টস: থাইল্যান্ড, ব্যাটিং
থাইল্যান্ড নারী দল: ১৯.৪ ওভারে ৮২ (চানথাম ২০, মায়া ২৬; সালমা ১/১৮, নাহিদা ২/১১, সানজিদা ২/১১, সোহেলি ২/১৮, রুমানা ৩/৯)
বাংলাদেশ নারী দল: ১১.৪ ওভারে ৮৮/১ (শামিমা ৪৯, ফারজানা ২৬*, নিগার ১০*; পুথাওং ১/২৩)
ফল: বাংলাদেশ নারী দল ৯ উইকেটে জয়ী
ম্যাচসেরা: শামিমা সুলতানা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: