রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১০:৪৮ অপরাহ্ন

মোংলায় বরফ কল শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু

প্রতিনিধির / ১৪০ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২২
মোংলায় বরফ কল শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু
মোংলায় বরফ কল শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু

মোংলায় এক বরফ কল শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর এ ঘটনা নিয়ে রয়েছে মিল মালিক ও এলাকাবাসীর বিভ্রান্তিকর বক্তব্য। কেউ বলছেন বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে আবার কেউ বলছেন মটরে লুঙ্গি পেচিয়ে মৃত্যু হয়েছে এ শ্রমিকের। তবে ডাক্তার ও পুলিশ বলছেন, বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট কিংবা মটর পেচিয়ে মৃত্যুর কোন আলামত পাওয়া যায়নি নিহতের শরীরে।

স্থানীয় বাসিন্দা নাঈম শেখ ও পুলিশ জানায়, উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ বাজিকরখন্ড এলাকার আয়ান বরফ কলে শ্রমিকের কাজ করতেন একই এলাকার সোলায়মান শেখ (১৭)। সে প্রায় তিন মাস ধরে ওই বরফ কলে শ্রমিক হিসেবে চাকুরী করে আসছিলেন। কিন্তু বুধবার রাত ৮টার দিকে ওই বরফ কলে রহস্যজনক মৃত্যু হয় তার। পরে স্থানীয়রা ওই বরফ কল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মেহেদী হাসান বলেন, রাত সাড়ে ৮টার দিকে হাসপাতালে সোলায়মান নামের এক লোকের লাশ নিয়ে আসেন স্থানীয়রা। হাসপাতালে আসার ২০/২৫ মিনিট আগেই তার মৃত্যু হয়। তবে লাশের সঙ্গে যারা আসেন তাদের বক্তব্য এলোমেলো হওয়াতে এবং শরীরে কোথাও বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট মটরে লুঙ্গি পেঁচিয়ে যাওয়ার মত ঘটনার কোন আঘাত এবং চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তাই সন্দেহবশত তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশে খবর দেয়া হয়।

খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরীকারী পুলিশের এসআই মোঃ হাদীউজ্জামান খাঁন বলেন, নিহতের সারা শরীরের কোথাও কোন চিহ্ন নেই। ফলে মৃত্যুরও কোন সুস্পষ্ট ক্লু পাওয়া যায়নি। তাই লাশের ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

নিহত সোলায়মান শেখ বাজিকরখন্ড এলাকার দিনমজুর সেলিম শেখের ছেলে।

বরফ কল মালিক অপু হাওলাদার দাবী করে বলেন, রাত ৮টার দিকে আমি বরফ কলের মটর চালু করলে তাতে লুঙ্গি পেচিয়ে যায় শ্রমিক সোলায়মানের। এরপর দ্রুত মটর বন্ধ করে দিয়ে তার কাছে যেতে যেতেই হঠাৎ মারা যায় সে। মিল মালিক আরো বলেন, মটরে লুঙ্গি পেচিয়ে গেলেও তার শরীরের কোথাও কোন আঘাত পায়নি।

এদিকে বরফ কল শ্রমিকের রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে নানা গুঞ্জন চলছে। তবে মিল মালিক অপু ও তার দুলাভাই মামুন মিলে এ ঘটনাটি ধামাচাপাসহ ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপতৎপরতা চালাচ্ছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। মিল মালিক অপুর পিতা মোকছেদ হাওলাদার পার্শ্ববর্তী মোড়েলগন্জ উপজেলার জিউধারা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর। এছাড়া মেম্বর মোকছেদ নিজেও স্থানীয় ইউপি মেম্বরকে দিয়ে এ মৃত্যুর মুল রহস্য ধামাচাপা দেয়ার দেনদরবার চালাচ্ছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ভাড়ায় মটর সাইকলে চালক নাঈম শেখ বলেন, শুনেছি মটরে লুঙ্গি পেচিয়ে বৈদ্যুতিক তারের উপরে পড়ে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মারা যায় সোলায়মান। তারপর আমি তাকে ইজিবাইকে করে হাসপাতালে নিয়ে আসি। কিন্ত হাসপাতালে আনার পর ডাক্তার তার শরীরে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টের কোন দাগ পাননি।

নিতহের দাদী শেফালী বেগম বলেন, শুনেছি বরফ কলের মটর চালাতে গিয়ে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে সোলায়মান, আমরা তো আর তখন দেখিনি কিভাবে মারা গেছে, তবে অন্যান্যদের মুখে শুনেছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: