শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ১০:৪৮ অপরাহ্ন

শীত ঘনিয়ে এলেও দাম কমার কোনো উপসর্গও নেই সবজির

প্রতিনিধির / ১২০ বার
আপডেট : শুক্রবার, ৪ নভেম্বর, ২০২২
শীত ঘনিয়ে এলেও দাম কমার কোনো উপসর্গও নেই সবজির
শীত ঘনিয়ে এলেও দাম কমার কোনো উপসর্গও নেই সবজির

শীত ঘনিয়ে আসলেও রাজধানীর বাজারে সবজির দাম কমছে না। দাম কমার কোনো উপসর্গও এখন পর্যন্ত নেই। চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে শিম, বাধাকপি, ফুলকপি, ক্যাপসিকাম, গাজর। শুক্রবার (৪ নভেম্বর) রাজধানীর বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।বাজারগুলোতে শীতের কিছু সবজির আনাগোনা রয়েছে কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই। তবে দাম বেশ চড়া। শিম বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা কেজি দরে। গাজরের কেজি ১২০ থেকে ১৫০ টাকা। প্রতি পিস বাধাকপি ও ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা পিস দরে।

এছাড়া বাজারে পেঁপের কেজি ৫০ টাকা। এক কেজি করলা কিনতে ক্রেতাকে গুনতে হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকা। চিচিঙ্গা বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা কেজি দরে, একই দামে বিক্রি হচ্ছে পটল।রাজধানীর মোহাম্মদপুরের কৃষি মার্কেটে শুক্রবার সকালে বাজার করতে আসা সিরাজুল ইসলাম বলেন, প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বেশি। সবজি বলেন, মাছ বলেন, সব কিছুর। মাংসের বাজারে যাওয়ার তো সাহসই পাই না।

সাইদুল হক নামে অপর এক ক্রেতা বলেন, আমার বয়স প্রায় পঞ্চাশ। এত বছরে এমন দাম দেখিনি। কিছু জিনিসের দাম হুট করে বাড়ত, আবার কমে যেত। এখন তো সব এক সঙ্গে বেড়ে গেছে। কমার কোনো নামগন্ধ নাই।বাজার ঘুরে দেখা যায়, ঢেঁড়সের কেজি ৭০ টাকা, কচুর লতি ৮০ টাকা, বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজি দরে, দুন্দলও বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়আকারভেদে চাল কুমড়া বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকায়, লাউ ৬০ থেকে ৮০ টাকা, মিষ্টি কুমড়ার ফালি ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

এছাড়া কাঁচামরিচের কেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকা, কাঁচা কলার হালি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, লেবুর হালি ২০ থেকে ৩০ টাকা। শসার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা কেজি দরে।সবজির এই বাড়তি দাম গত দুই মাসের বেশি সময় ধরে বলবৎ রয়েছে। এরমধ্যে কোনো সবজির দাম সেভাবে কমেনি, বরং বেড়েছে।দুই মাস আগে ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছিল। এক ধাপ দাম কমলেও আবারও গত মাসে ব্রয়লারের দাম পৌছায় ১৮০ টাকায়। এখন তা বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকা কেজি দরে। আর ডিমের হালি ৫০ টাকা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: