শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন

সমাবেশে লাখ লাখ বলে দলের নেতারা চিত্তকে সুখ দিতে মনকলা খাচ্ছে:ওবায়দুল কাদের

প্রতিনিধির / ১০৯ বার
আপডেট : রবিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২২
সমাবেশে লাখ লাখ বলে দলের নেতারা চিত্তকে সুখ দিতে মনকলা খাচ্ছে:ওবায়দুল কাদের
সমাবেশে লাখ লাখ বলে দলের নেতারা চিত্তকে সুখ দিতে মনকলা খাচ্ছে:ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপির খুলনায় এক লাখ লোকও হয়নি। কিন্তু লাখ লাখ বলে দলের নেতারা চিত্তকে সুখ দিতে মনকলা খাচ্ছে।’রবিবার (২৩ অক্টোবর) বেলা ১১টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মেট্রোরেল-১ (এমআরটি লাইন-১)-এর নির্মাণকাজ তদারকির জন্য পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিস্বাক্ষর শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘কত হাজারে লক্ষ বলা হয়। ময়মনসিংহ-খুলনায় কতো হয়েছে সেটি সাংবাদিকরা দেখেছেন। এর সঙ্গে বাস্তবতা নেই। তবে চট্টগ্রামে লাখের কাছাকাছি লোক হয়েছে। ফখরুল সাহেবকে বিকালে আমন্ত্রণ জানিয়েছি একটা জেলা সম্মেলনে কতো মানুষ হয় দেখার জন্য। তারা লাখ লাখ বলে বলে মনকলা খাচ্ছেন চিত্তকে সুখ দেওয়ার জন্য।’বিএনপির কর্মসূচির পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ কোনও পাল্টা কর্মসূচি দেবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিএনপির সঙ্গে কীসের পাল্টাপাল্টি। প্রতিদিন আমাদের প্রোগ্রাম হচ্ছে। লক্ষ লক্ষ লোক দেখবেন? আসেন। ২৯ তারিখ ঢাকা মহানগর সম্মেলন করবো, সেখানে আসেন।’

বিএনপির সমাবেশ হলে বাস ধর্মঘট হয়—এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘চট্টগ্রামে কি বাস বন্ধ ছিল? বাস মালিকদের সেটি জিজ্ঞাসা করুন। আমি যখন মন্ত্রী, তখন তারা (বাস মালিক) আমাদের বিরুদ্ধেও ধর্মঘট করেছে। বেসরকারি গাড়ি, মালিকরা চালাবে কি চালাবে না, সেটা তো আমি জোর করতে পারি না। আমার বিরুদ্ধে যখন (বাস বন্ধ করে) আন্দোলন করা হয়, তা আপনারা দেখেন না।’

‘পদত্যাগ করে সেফ এক্সিট’ নিতে সম্প্রতি ক্ষমতাসীনদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তা না হলে পালানোর পথ খুঁজে পাবে না বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ফখরুল সাহেবের নিজের সেইফ এক্সিট নেই, তার নিজেরই সেটা দরকার। যেভাবে লাঠিসোঁটা নিয়ে নেমেছেন এবং আবার অগ্নিসন্ত্রাসের আভাস দিচ্ছেন; এর পরিণাম শুভ হবে না।

আমরা এক্সিট করবো না, আমরা ফাইটার, ফাইট করবো। বন্দুকের নল আমাদের ক্ষমতার উৎস নয়। আওয়ামী লীগের রাজনীতির ইতিহাসে ষড়যন্ত্র নেই। সেইফ এক্সিট নির্বাচন, এটি সবার জন্য সেইফ এক্সিটের জায়গা। আপনারা পরিবর্তন চাইলে নির্বাচনে আসুন। অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশেও নির্বাচন হবে। যাদের কাছে নালিশ করেন, তাদের দেশে কোথায় তত্ত্বাবধায়ক সরকার আছে? এই ভূত মাথা থেকে নামান। পালিয়েছেন আপনারা, পালানোর দল বিএনপি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কি পালানোর দল, তারা কেন পালাবে? পালিয়েছে যিনি আপনাদের মূল নেতা। যিনি টেমস নদীর পার থেকে ফরমায়েশ দেয়।

যার নির্দেশে আপনারা চলেন, তিনি তো কাপুরুষের মতো মুচলেকা দিয়ে পালিয়েছেন লন্ডনে। দেশের ফেরার সৎসাহস পেলেন না। তিনি নাকি আবার গণঅভ্যুত্থানে নেতৃত্ব দেবেন, পাগলে কিনা বলে ছাগলে কিনা খায়।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: