সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৬:০৭ অপরাহ্ন

হালান্দের রেকর্ডের রাতে সিটির গোলোৎসব

প্রতিনিধির / ৭৭ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০২২
হালান্দের রেকর্ডের রাতে সিটির গোলোৎসব
হালান্দের রেকর্ডের রাতে সিটির গোলোৎসব

বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে গোলমেশিন উপাধি পান আর্লিং ব্রট হালান্দ। এবার নরওয়েজিয়ান স্ট্রাইকারের প্রশংসায় ম্যান সিটি গোলরক্ষক এদেরসন বললেন, ‘সে মানুষ নয়’। তাহলে কি অন্য গ্রহের প্রাণী হালান্দ? হলে হতেও পারে! প্রিমিয়ার লীগে যোগ দিয়ে যে অতি মানবীয় পারফরম্যান্স দেখিয়ে চলেছেন, তাতে তার বিশেষণ খুঁজে পাওয়া ভার। বুধবার ইতিহাদ স্টেডিয়ামে চ্যাম্পিয়নস লীগের ম্যাচেও অব্যাহত ছিল ‘হালান্দ শো’। তার রেকর্ডগড়া জোড়া গোলে এফসি কোপেনহেগেনকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দেয় সিটিজেনরা।

চলতি মৌসুমে প্রিমিয়ার লীগ ও চ্যাম্পিয়নস লীগে টানা ৯ ম্যাচে গোল করলেন হালান্দ। মাত্র চতুর্থ খেলোয়াড় হিসেবে এই কীর্তি গড়লেন তিনি। এর আগে এই রেকর্ড গড়েছেন ম্যানইউর সাবেক ফুটবলার রুড ভ্যান নিস্টালরয়, লেস্টার সিটির জ্যামি ভার্ডি ও লিভারপুলের মোহাম্মদ সালাহ।
২০১৯ সালে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লীগ অভিষেক হয় হালান্দের। সেই থেকে এখন পর্যন্ত ২২ ম্যাচে মোট ২৮ গোল করেছেন তিনি। এতে ম্যানইউ কিংবদন্তি রায়ান গিগসকে (২৮ গোল) স্পর্শ করেছেন হালান্দ। পেছনে ফেলেছেন লুইস সুয়ারেজকে (২৭ গোল)।

বুধবার রাতে গোল উৎসবের শুরুটা করেন হালান্দই।

সপ্তম মিনিটেই দলকে লিড এনে দেন। আর ৩২ মিনিট ব্যবধান বাড়ান তিনি। ৩৯তম মিনিটে সিটির প্রচেষ্টা ঠেকাতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল পাঠিয়ে দেন কোপেনহেগেনের জর্জিয়ান সেন্টার ব্যাক দাভিত খচোলাভা। দ্বিতীয়ার্ধের ১০ম মিনিটে সফল স্পটকিকে স্কোরলাইন ৪-০ করেন রিয়াদ মাহরেজ। আর ৭৬তম মিনিটে স্কোরশিটে নাম তোলেন সিটির আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড জুলিয়ান আলভারেজ।
চ্যাম্পিয়নস লীগে ঘরের মাঠে ২২ ম্যাচ অপরাজিত ম্যানচেস্টার সিটি। যা প্রিমিয়ার লীগের কোনো ক্লাবের হোম ম্যাচে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আনবিটেন থাকার রেকর্ড। ২০০৫ থেকে ২০০৯ সালের মধ্যে ২৩ ম্যাচে অপরাজিত থেকে রেকর্ড গড়েছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

‘জি’ গ্রুপের অন্য ম্যাচে সেভিয়াকে ৪-১ গোলে হারায় বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। ৩ ম্যাচে ৩ জয়ে পূর্ণ ৯ পয়েন্ট নিয়ে ‘জি’ গ্রুপের শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি। ২ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। তিনে থাকা সেভিয়ার পয়েন্ট এক। সমান পয়েন্ট নিয়ে চারে কোপেনহেগেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: